প্রথম পাতা > অজানা, উইকিপিডিয়া, ওপেন সোর্স, টিউটোরিয়াল > [ভিডিও] – উইকিপিডিয়া যাচাইযোগ্যতা ও নিরপেক্ষতা বিষয়ক টিউটোরিয়াল

[ভিডিও] – উইকিপিডিয়া যাচাইযোগ্যতা ও নিরপেক্ষতা বিষয়ক টিউটোরিয়াল


উইকিপিডিয়ার যাচাইযোগ্যতা ও নিরপেক্ষতা সম্পর্কিত একটি ভিডিও টিউটোরিয়াল। ভিডিওটির বাংলা সাবটাইটেল সংস্করণ দেখতে ভিজিট করুন ইউনিভার্সাল সাবটাইটেল ওয়েবসাইটের লিঙ্কে,  http://universalsubtitles.org/videos/vCmxflny7NBK/bn/

উইকিমিডিয়া আউটরিচ ওয়েবসাইটে ভিডিওটির বাংলা ট্রান্সক্রিপ্ট পাওয়া যাবে,

আপনি হয়তো উইকিপিডিয়া দেখেছেন। যা একটি উন্মুক্ত অনলাইন বিশ্বকোষ যা বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলের আমার আপনার মত লোকেরই তৈরি।

আপনি হয়তো আশ্চর্য হবেন কিভাবে হাজারো মানুষ একসাথে একটি বিশ্বকোষ গড়ে তোলে।

প্রথমেই উইকিপিডিয়া একটি উইকি ওয়েবসাইট, যে ওয়াবসাইটে যে কেউ সম্পাদনা করতে পারে। তাই উইকিপিডিয়ায় সম্পাদনা বা নতুন নিবন্ধ তৈরি একটি বোতামের ক্লিকে হয়। কিন্তু এই অবদান উইকিপিডিয়ায় ধরে রাখতে তাদের অবশ্যই দুইটি সাধারণ নিয়ম মেনে চলতে হয়।

প্রথমটি যাচাইযোগ্যতা। অনেক অবদানকারীর সাথে সাথে উইকিপিডিয়া নিবন্ধ সত্যতা যাচাই জন্য প্রকাশিত উৎস যেমন বই বা সংবাদপত্রের উপর নির্ভর করতে হয়।

অবদানকারীদের এই সব উৎস নিবন্ধে এবং উদ্ধৃতিতে উল্লেখ করতে হয় যা নিশ্চিত করে যে উইকিপিডিয়া নিবন্ধ সঠিক এবং উন্নতমানের।

যদি যা যাচাইযোগ না হয় তাহলে তা উইকিপিডিয়া থাকতে পারবে না। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, আপনি লিখতে পারেন ১৯৩৫ সালে আমেরিকায় চাকরী নিয়োগ হার ছিল ২০.১ শতাংশ।

কিন্তু এটি উইকিপিডিয়ায় রাখতে এর সাথে আপনাকে এ তথ্যের উৎস উল্লেখ করতে হবে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন ইতিহাস বই যাচাইযোগ্য উৎস হতে পারে।

দ্বিতীয়ত প্রয়োজন নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গি। উইকিপিডিয়ার সকল বিষয়বস্তু কোন রকম পক্ষপাতিত্ব ছাড়া, নিরপেক্ষ হতে হবে।

অন্যান্য বিশ্বকোষের মতই। এর অর্থ হবে উইকিপিডিয়া এমন কোন জায়গা নয় যেখানে অবদানকারী তার নিজস্ব মতামত প্রকাশ করবেন।

ধরুন, আপনি টিকাদানের একজন অধিবক্তা, এবং আপনি লিখলেন, “প্রত্যেক পিতামাতারই উচিত তাদের শিশুকে টিকাদান করা”। দূর্ভাগ্যবশত এ বক্তব্যটি পক্ষপাতদুষ্ট, কারণ অনেকেই এর সাথে দ্বিমত প্রকাশ করে।

এটা উইকিপিডিয়ায় থাকতে পারবে না। তবে বিশেষজ্ঞদের প্রকাশিত মতামত এতে যুক্ত করা যেতে পারে। এবং এখানেও বিভিন্ন মত থাকতে পারে।

নিবন্ধে কোন একটিকে সমর্থন না দিয়ে সকল গুরুত্বপূর্ণ মতামত উপস্থাপিত হতে হবে।

যেমন লিখলেন “টিকাদানে আমেরিকার প্রায় ৩৩,০০০ শিশুর জীবন রক্ষা করেছে”। এবং সাথে একটি খ্যাতনামা তথ্য উৎস উল্লেখ করলেন, যেখান থেকে এই তথ্যটির সত্যতা যাচাই করা সম্ভব।

এবং যদি এর বিপরীত কোন মতামত থাকে তাহলে, সেটাও অন্তর্ভুক্ত করা উচিত। যেমন ধরুন, কোন খ্যাতনামা তথ্য উৎস থেকে “সমালোচকগণ দাবি করেন যে টিকাদান জনসাধারণের স্বাস্থ্যের কোন উপকারে আসে না।” এটা নিবন্ধতে ভারসাম্য আনতে সাহায্য করে এবং নিবন্ধকে রাখে নিরপেক্ষ।

এই দুটো নিয়ম অনুসরণে, অবদানকারীগণ একজন আরেকজনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকেন এবং একটি উন্মুক্ত বিশ্বকোষ তৈরিতে সহায়তা করেন, মানুষের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় বিশ্বকোষ। wikipedia.org এ আরও জানুন।

ভিডিওটির আরও ভাল সাবটাইটেল দিতে আপনাদের মতামত ও পরামর্শ কামনা করছি।

  1. কোন মন্তব্য নেই এখনও
  1. No trackbacks yet.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: